বিমানবন্দরে দ্রুত আরটিপিসিআর মেশিন স্থাপনের দাবিতে বিক্ষোভ

আইরিশ বাংলাপোষ্ট ডেস্কঃ বিমানবন্দরে দ্রুত আরটিপিসিআর মেশিন স্থাপনের দাবিতে বিক্ষোভ করছে প্রবাসীরা। তারা সময় মতো কর্মস্থলে ফিরতে না পেরে প্রাবাসীদের অনেকেই চাকরি হারিয়েছেন। এতে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তারা।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে প্রবাসী কল্যাণ ভবনের সামনে এ বিক্ষোভ ও আমরণ অনশন কর্মসূচি শুরু করে এসব কথা বলেন প্রবাসীরা।

এদিকে সংযুক্ত আরব-আমিরাতগামী যাত্রীদের র‌্যাপিড পিসিআর টেস্টের কাজ কারা করবে, সে বিষয়ে আজকের মধ্যেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। মন্ত্রী বলেন, সক্ষমতার দিক থেকে সাতটি কোম্পানিকে আমলে নেওয়া হয়েছে। এই সাতটি কোম্পানির মধ্য থেকে কাজ দেওয়া হবে। এই সিদ্ধান্ত আজকেই হয়ে যাবে যে, কারা কাজ পাবে।

এদিকে প্রবাসীদের অভিযোগ, গত ৬ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনার পরও দেশের তিন বিমানবন্দরে স্থাপন হয়নি আরটিপিসিআর ল্যাব। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পরও ল্যাব স্থাপন না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন প্রবাসীরা।

আন্দোলনকারীরা আরও বলেন, উগান্ডা, নেপাল, শ্রীলঙ্কা এবং মালদ্বীপ এই শর্ত পূরণ করলেও বাংলাদেশ তা পারেনি। এই ব্যর্থতা দেশের জন্য অসম্মান বয়ে আনছে বলেও জানান প্রবাসীরা।

প্রবাসী কর্মীরা আরও বলছেন, আগস্ট মাসে আরব আমিরাত জানিয়েছে- কোনও দেশের বিমানবন্দরে ল্যাব না থাকলে সে দেশের নাগরিকরা আমিরাতে যেতে পারবেন না। এর এক মাস পেরিয়ে গেলেও বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ, স্বাস্থ্য অধিদফতর ল্যাব স্থাপনের উদ্যোগ নেয়নি। প্রবাসীরা আন্দোলন করার পর প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসলে তিনি নির্দেশনা দিলেন, তাতেও গড়িমসি। এ কারণে দেশে আটকে পড়া ৪০ থেকে ৫০ হাজার প্রবাসী কর্মী অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছেন। গত ৬ সেপ্টেম্বর মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছিলেন, দেশের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরগুলোতে করোনার র‍্যাপিড পিসিআর টেস্টের ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে এই কার্যক্রম শুরু হবে। সেদিন (৬ সেপ্টেম্বর) মন্ত্রিসভার বৈঠকে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

SHARE THIS ARTICLE